আজ ৩০শে পৌষ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৩ই জানুয়ারি, ২০২১ ইং

সাভারে মুস্তাফিজ হত্যা: আদালতে আজাদ শরীফের দোষ স্বীকার

 

নিজস্ব প্রতিবেদক :

সাভারে শিক্ষক মুস্তাফিজ হত্যাকন্ডের ঘটনায় গ্রেফতার দুই জনের একজন আদালতে স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দী দিয়েছেন। পরে দুইজনকেই জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) রাতে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন সাভার মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাইফুল ইসলাম। বিকেলে চীফ জুডিশিয়্যাল ম্যাজিস্ট্রেট রাজীব হাসানের আদালতে স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দী দেন আজাদ শরীফ।

নিহত মোস্তাফিজুর রহমান রাজশাহী জেলার দূর্গাপুর থানার নওয়াপাড়া গ্রামের মজিবুর রহমানের ছেলে। সে গ্লোরিয়াস ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজ নামে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রশাসনিক কর্মকর্তা হিসেবে একটি স্কুলে কর্মরত ছিল।

এর আগে সোমবার (২৬ অক্টোবর) রাতে সাভারের রাজাসন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ডগি রনি ওরফে কুত্তা রনি (২৪) ও আজাদ শরীফকে (৩২) গ্রেফতার করে সাভার থানায় হস্তান্তর করে র্যাব-৪। পরে দুপুরে তাদের আদালতে পাঠানো হয়।

সাভার মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাইফুল ইসলাম জানান, গ্রেফতারকৃতদের বিকেলে চীফ জুডিশিয়্যাল ম্যাজিস্ট্রেট রাজীব হাসানের আদালতে তোলা হলে আজাদ শরীফ ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দী দেয়। পরে তাদের জেল হাজতে পাঠানো হয়।

এদিকে একই ঘটনার অপর আসামি আরিফ (২৬) কে মাদক মামলার পরোয়ানা থাকায় নড়াইল থেকে গ্রেফতার করে নরাগাতি থানা পুলিশ। ঘটনার দিনই আরিফ নিজ এলাকা নড়াইলে পালিয়ে যায়। সেখানে গিয়েও শেষ রক্ষা হয় নি তার। আগে থেকেই পরোয়ানার আসামি ছিলো সে। নড়াইলে অপকর্ম করে সাভারে গা ঢাকা দেয় আরিফ। এখানেও অপকর্মে জড়িয়ে পরে সে। সর্বশেষ মুস্তাফিজকে হত্যা করে পুলিশের হাতে ধরা পরে সে।

প্রসঙ্গত, গত ২৪ অক্টোবর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী মুস্তাফিজ বাড়ি থেকে কর্মস্থলে যাওয়ার সময় ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের সাভারের সিআরপি রোডে ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে নিহত হয়। তার কাছে থাকা কয়েক হাজার টাকা ও মোবাইল ছিনতাই করার চেষ্টা করলে বাঁধা দেয় মুস্তাফিজ। তার জিনিসপত্র কুত্তা রনি ও আজাদ শরীফ ছিনতাইয়ের চেষ্টা করে। এসময় আরিফ মুস্তাফিজকে উপর্যপুরী ছুড়িকাঘাত করলে ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ