আজ ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৭শে জুন, ২০২২ ইং

ভোলার লালমোহনের ফরাজগঞ্জে নৌকার জয়

 

মোঃ মুশফিক হাওলাদার, লালমোহন (ভোলা) প্রতিনিধি :

ভোলার লালমোহন উপজেলাধীন ৬নং ফরাজগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ সাধারণ নির্বাচনে কোন ধরণের সহিংসতা ছাড়াই শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ সমাপ্ত হয়েছে। এতে ১২১৯১ ভোটে জয় পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামীলীগ মনোনিত (নৌকা প্রতীক) প্রার্থী ফরহাদ হোসেন মুরাদ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ ফারহাদ হোসেন নাঈম (অটোরিক্সা প্রতীক) পেয়েছেন ২৬০ ভোট।
গতকাল ২০ অক্টোবর (মঙ্গলবার) সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত বিরতিহীন চলে ভোটগ্রহণ।
লালমোহন উপজলো নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, চেয়ারম্যান পদে ইসলামী শাসনতন্ত্র মনোনিত (হাতপাখা প্রতীক) প্রার্থী তোফায়েল আহমদ পেয়েছেন ১৩৪, স্বতন্ত্র প্রার্থী ফয়েজউল্যাহ (আনারস প্রতীক) ৮০ ও মোঃ কামাল হোসেন রিপন (চশমা প্রতীক) পেয়েছেন ৪২ ভোট।
এ ইউনিয়নের মোট ভোটার সংখ্যা ২০০২০জন। ভোট প্রদান করেছেন ১২৯৮৩জন, এরমধ্যে বৈধ ভোট ১২৭০৭ এবং অবৈধ (বাতিলকৃত) হয়েছে ২৭৬ ভোট। ভোট প্রদানের হিসেবে ফরাজগঞ্জ ইউপি নির্বাচনে শতকরা ৬৪.৮৫ ভোট পড়েছে।
এছাড়া এ ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য হলেন যারাঃ
১নং ওয়ার্ডে ৫৪৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মোঃ মোশারফ হোসেন (মোরগ প্রতীক), তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি মোঃ হোসেন (ফুটবল প্রতীক) পেয়েছেন ২৫৭ ভোট।
২নং ওয়ার্ডে ৭৮০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন নুরুল আলম (মোরগ প্রতীক), তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি হুমায়ুন কবির (ফুটবল প্রতীক) পেয়েছেন ৪০০ ভোট।
৩নং ওয়ার্ডে ৯০২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন আনোয়ার জাহিদ (মোরগ প্রতীক), তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি মোঃ মহসিন হাওলাদার (আপেল প্রতীক) পেয়েছেন ৪৮২ ভোট।
৪নং ওয়ার্ডে ৬৬৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মাহবুবুল আলম সেন্টু (ফুটবল প্রতীক), তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি হুমায়ুন কবির (মোরগ) পেয়েছেন ৫৭২ ভোট।
৫নং ওয়ার্ডে ৬৮৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন ছালাউদ্দিন শামিম (ফুটবল প্রতীক), তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি মামুনুর রশিদ (টিউবয়েল) পেয়েছেন ৩৩৫ ভোট।
৬নং ওয়ার্ডে ৫৩৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মোঃ শাকিল (ফুটবল প্রতীক), তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি মোঃ শামসুল আলম (টিউবয়েল প্রতীক) পেয়েছেন ৫০৫ ভোট।
৭নং ওয়ার্ডে ৬৫২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মোঃ মহসিন (তালা প্রতীক), তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি মোঃ শাহাবুদ্দিন ভ্ট্টুু (ফুটবল প্রতীক) পেয়েছেন ৩৫৭ ভোট।
৮নং ওয়ার্ডে ৪০৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মোস্তফা কামাল (ফুটবল প্রতীক), তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি মোঃ রহমান (তালা প্রতীক) পেয়েছেন ৩৯২ ভোট।
৯নং ওয়ার্ডে ৬৫৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মোঃ কাউছার হোসেন (ভ্যান গাড়ি প্রতীক), তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি মোঃ ইব্রাহিম সিরাজ (ফুটবল প্রতীক) পেয়েছেন ৫১৫ ভোট।
ফরাজগঞ্জ ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডে ৩জন সংরক্ষিত মহিলা সদস্য হলেন যারাঃ
১,২,৩ নং ওয়ার্ডে ১৮৩৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন নারগিস বেগম (সূর্যমূখী ফুল প্রতীক), তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি তাহমিনা বেগম (কলম প্রতীক পেয়েছেন ১৫৬৯ ভোট।
৪, ৫, ৬ নং ওয়ার্ডে ১১৮৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন রোকেয়া বেগম (মাইক প্রতীক), তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি বিবি আমেনা (সূর্যমূখী ফুল প্রতীক) পেয়েছেন ৮০১ ভোট।
৭, ৮, ৯ নং ওয়ার্ডে ১৫৫৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন নাজমা বেগম (বই প্রতীক), তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দি¦ নিলুফা বেগম (কলম প্রতীক) পেয়েছেন ১৪০২ ভোট।
নির্বাচন সুষ্ঠ ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন করার লক্ষে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীঃ
লালমোহন উপজলায় একটি মাত্র ইউনয়িনে ভোটগ্রহণ হ্ওয়ায় তা সুষ্ঠ ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন করতে প্রশাসনরে ভূমকিা ছিল লক্ষণীয়। ৪জন ম্যাজিস্ট্রেট, ১ প্লাটুন বিজিবি, ২টিম র্যাব, প্রায় ২শত পুশিশ ও ১৭০জন আনসার সদস্য ছিল নির্বাচনী মাঠে। ফলে কোনরকম সহিংসতা ছাড়াই সুষ্ঠ ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন হয় ফরাজগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ সাধারণ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ