আজ ১৪ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৩০শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

শরৎ এলে মনে পড়ে

 

মো:নয়ন সরদার
শার্শা প্রতিনিধি :

চলছে শরৎ কাল। আর শরৎ হলো শুভ্রতার ঋতু। শরৎ মানেই প্রকৃতিতে মিশে থাকা। শরৎ মানেই নদীর তীরে কাশফুলের সাদা হাসি।

তাইতো কবি জীবনানন্দ দাশ শরৎকে নিয়ে লিখেছেন ‘বাংলার মুখ আমি দেখিয়াছি, তাই পৃথিবীর রুপ খুঁজিতে যাই না আর’। শরতের এই অপরূপ রুপ দেখে মুগ্ধ কবি অবলীলায় আবৃত্তি করে ফেললেন সেরা কিছু ছন্দকথা।

শরৎকালের সেই চিরচেনা দৃশ্য আর দেখা না গেলেও শরৎ তার আপন মনে প্রকৃতিটাকে সাজাতে শুরু করেছে। কালের আবর্তনে কাশবন আজ হারিয়ে যাচ্ছে প্রকৃতি থেকে।গ্রামবাংলায় বিচ্ছিন্নভাবে থাকা কিছু কাশফুল চোখে পড়লেও সেগুলোও এখন দিনে দিনে বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে।

প্রকৃতি বন্ধু, কাশফুলের নরম ছোঁয়া আর মনোমুগ্ধকর নয়নাভিরাম প্রাকৃতিক সৈন্দর্য বহনকারী কাশবনের রয়েছে বহুবিধ ব্যবহার। চারাগাছ একটু বড় হলেই এর কিছু অংশ কেটে গরু-মহিষের খাদ্য হিসেবে ব্যবহার করা যায়। কাশ দিয়ে গ্রামের বধূরা ঝাটা, ডালি, দোন তৈরি করে আর কৃষকরা ঘরের ছাউনি হিসেবেও ব্যবহার করে থাকেন।

মানুষ নিজের অজান্তে হারিয়ে যায় প্রকৃতির মাঝে আসলে। শরৎ এর কাশবনে ফিরে পাই সজিবতা ও কাশের নরম ছোঁয়া। বার বার ফিরে যেতে ইচ্ছে করে প্রকৃতির আপন ভুবনে। অতীত হাতড়ে প্রকৃতি প্রেমিরা আজও বসে থাকে শরৎ অপেক্ষায়।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ