আজ ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৫শে জুন, ২০২২ ইং

কুয়াকাটা আবাসিক হোটেল ঝিনুক ডাকবাংলোতে চলছে  দেহ ব্যবসা আটক ৫

জাহিদুল ইসলাম জাহিদ, কুয়াকাটা- কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি:-
কুয়াকাটায় হোটেল ঝিনুক ডাকবাংলো থেকে যৌনকর্মীদের একটি দলকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল (১০ সেপ্টেম্বর) রাত ১০টায় অভিযান চালিয়ে পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
গ্রেপ্তারককৃতরা হলেন ম্যানেজার, মোঃ জুয়েল (৩০) তালতলী উপজেলার খদ্দের মোঃ ফয়সাল (২৫) মোঃ সোহেল (১৮) সহ দুইজন যৌনকর্মী।
হোটেলের পরিচালক মোঃ এনায়েত হোসেনের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি, বারবার তাকে ফোন দিলে সে ফোন কেটে দিয়ে বন্ধ করে রাখে।
স্থানীয়দের সূত্রে জানাগেছে, আবাসিক হোটেল ঝিনুক ডাকবাংলোয় লিজ নিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ পরিচালনা করে আসছে বাউফলের পৌর মেয়র মোঃ জুয়েল। যৌনকর্মীররা জানান, তারা স্থায়ীভাবে ঝিনুক ডাকবাংলোয় ম্যানেজারের সাথে মদ, গাঁজাসহ, বিভিন্ন মাদকের ব্যবসা করে আসছেন। তারা সুকৌশলে সমুদ্রপারে ও বিভিন্ন স্থান সুযোগ বুঝে প্রচার করে পর্যটক ও স্থানীয়দের এই অসৎ কাজে আসার পথ দেখিয়ে দেন, হোটেল ম্যানেজার নির্দেশে মাঠ পর্যায়ে অবৈধ ব্যবসা প্রসারিত করার জন্য আরো তিনজন কাজ করে যাচ্ছেন। তারা অভিযানের কথা শুনে আগে থেকে ঘটনাস্থল ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ার কারণে, এখনও আটক করা সম্ভব হয়নি।
এ সময় গোপনে সাংবাদিকদের  হোটেলে আশেপাশে একজন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী বলেন, অনেকদিন যাবত তারা এই কুকর্ম করে আসছে, তাদের আমরা অনেকবার সচেতন করেছি, কিন্তু তারা সে কথা না শুনে এই অসৎ কাজ আরো বেশি করে শুরু করেছে, তার কারনে প্রতিনিয়ত সমস্যার মধ্যে পড়তে হয়েছে আমাদের, এবং তিনি সাথে সাথে কুয়াকাটা মহিপুর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন কুয়াকাটার আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এরকম সজাগ থাকলে মাদক ও অসৎ কর্ম কান্ড অতি দ্রুত দূর হবে বলে আশা করছেন।
এ বিষয়ে মহিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মনিরুজ্জামানের সাথে কথা হইলে তিনি বলেন, মানব পাচার আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে আটকৃতদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে এবং হোটেল কে তালাবদ্ধ করা হয়েছে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ