আজ ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৫শে জুন, ২০২২ ইং

রাজাপুরের গালুয়ায় যুবককে পিটিয়েছে সন্ত্রাসীরা :
নিজেস্ব প্রতিবেদক : ঝালকাঠি রাজাপুরের গালুয়ায় জমি জমা বিরোধের জের ধরে মোঃ কালাম হাওলাদার নামক এক যুবককে পিটিয়ে ও কুপিয়ে রক্তাক্ত করেছে একদল লাঠিয়াল বাহিনীর সন্ত্রাসীরা ।গত বুধবার (২ নভেম্বর) দুপুর সাড়ে ১১ টায় গালুয়া দূর্গাপুর গ্রামে নিজ হাওলাদার বাড়ীর সামনের রাস্তায় বসে এ হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে ।আহত কালাম ওই এলাকার মৃত মোকতার আলির ছেলে।বর্তমানে সে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছে ।আহতের স্বজনেরা জানান, একই এলাকার বাসিন্দা আহতের বড় ভাই মোঃ শাজাহান পরিকল্পনা করে বাবার মৃত্যুর আগে তার থেকে ছোট সৎ ভাই শুকুরের জন্য ১৫ কাঠা জমি লিখে নেয় । পরে ঘটনাটি জানাজানি হলে অসুস্থ বাবাকে রাজাপুরের ছোট জামাইয়ের বাড়ী লুকিয়ে রাখে । জমি জমা ঠিক করে দেয়ার কথা বলে নানান টাল বাহানা করে সময় কালক্ষেপন করতে থাকে । পিতা মোকতার হাওলাদার মারা গেলে ব্যাপারটি আরো জটিল আকার ধারন করে । শাজাহান ও শুকুর চক্রান্ত করে অন্যান জমি থেকেও সেজো ভাই কালামকে বঞ্চিত করতে চায় ।এ নিয়ে উভয় ভাইদের মাঝে দন্দ্ববিরাজমান ছিল। ঘটনার দিন ওই জমি নিয়ে উভয়ের মাঝে কথা কাটাকাটি হয় । এক পর্যায়ে শাজাহান ও শুকুর ক্ষিপ্ত হয়ে তাদের নেতৃত্বে শাজাহানের ছেলে বাবু, নজরুল, ও সন্ত্রাসী বেল্লাল, রুলি বেগম সহ অজ্ঞাত ৭/৮ জনের একটি লাঠিয়াল বাহিনীর দল দেশীও অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে কালামের উপরে হামলা চালায়। এসময় তাকে বাচাঁতে ছোট ভাইয়ের বউ রাসিদা ছুটে আসলে তাকেও পিটিয়ে আহত করে । তাদের ডাক চিতকার শুনে স্থানীয়রা ছুটে আসর আগেই সন্ত্রাসীরা ঘর ভাংচুর ও লুটপাট চালিয়ে চলে যায় । পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে রাজাপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যায়। সেখানে কালামের অবস্থার অবনতি হলে সেখানকার কর্মরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য শেমাচিমে প্রেরণ করে। বর্তমানে সে এ হাসপাতালে সার্জারি ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্তায় রয়েছে ।
আহত কালাম বলেন , এ সন্ত্রাসীরা নানা সময় হত্যা সহ লাশ গুম করারও হুমকি দেয়। তারা এলাকায় মাদক ব্যবসায়ী সন্ত্রাসীও বটে তাই প্রতিনিয়ত আমি ও আমার পরিবার জীবনের যুকির মধ্যে দিন কাটাচ্ছি । তারা যে কোন সময় বড় ধরনের ক্ষতি করতে পারে তাই প্রশাসনের সহায়তা কামনা করছি। বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের অধ্যাপক ডা. নাজিবুল হক বলেন, রাজাপুর থেকে এক রোগী আশঙ্কাজনক অবস্থায় সার্জারি বিভাগে ভর্তি হয়েছে। তার শরীরে অনেকগুলো পেটানোর আঘাত রয়েছে। তাকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে । এ নিয়ে রাজাপুর থানার ডিউটিরত এক পুলিশ কর্মকতা জানান, এ ব্যাপারে থানায় কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। লিখিত অভিযোগ পেলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তবে অভিযোগ দেয়া হয়নি কিন্তু হাসপাতালের কাগজপত্র নিয়ে মামলা করা হবে বলেও আহতদের স্বজনেরা সাংবাদিকদের আরও জানান।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ