আজ ২৬শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৯ই জুন, ২০২১ ইং

সাভারে চাকুরী দেওয়ার নামে প্রতারনা, বিধবা নারীর লিখিত অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক 

 

ঢাকার সাভারে চাকুরী দেয়ার কথা বলে প্রতারনা করে এক বিধবার নারীর কাছ থেকে নগদ পাঁচ লাখ টাকাসহ ছয় লক্ষ চুয়াল্লিশ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে সাভার কেন্দ্রীয় গো-প্রজনন ও দুগ্ধ খামারের বায়ার অফিসার মোঃ শফিকুর রহমানের বিরুদ্ধে। এছাড়া পাওনা টাকা চাইতে তার বাসায় গেলে ওই বায়ার অফিসার ভুক্তভোগী নারীকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে তাড়িয়ে দেয়। বিধবা ওই নারী (১৩ ফেব্রুয়ারী) বাদী হয়ে প্রতারনা বিষয়টি উল্লেখ করে আশুলিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।


লিখিত অভিযোগ থেকে জানা যায়, ঢাকার ধামরাই উপজেলার ডাউটিয়া গ্রামের মৃত নূর হোসেনের মেয়ে বিধবা শাহানাজ বেগম (৩১)। এক ছেলে এক মেয়েকে নিয়ে জীবিকার তাগিদে গত দশ বছর আগে সাভারে আসেন। প্রায় তিন বছর ধরে সাভার কেন্দ্রীয় গো-প্রজনন ও দুগ্ধ খামারের বায়ার অফিসার মোঃ শফিকুর রহমান তার অফিসে শাহানাজ বেগমকে অফিস পরিচারিকা হিসেবে সাত হাজার টাকা বেতনে মৌখিক নিয়োগ দেন। এরপর থেকে প্রতিমাসে সে বেতনের টাকা থেকে ৪ হাজার টাকা চাকুরী স্থায়ী করনের জন্য কেটে রেখে নগদ তিন হাজার টাকা করে দিতেন বিধবা শাহানাজকে।
এমতাবস্থায় গত তিন মাস আগে উক্ত প্রতিষ্ঠানে চুক্তি ভিত্তিক লোক নিয়োগ করা হবে জানিয়ে শাহানাজকে সেখানে নিয়োগ দেয়ার আশ্বাস দিয়ে প্রতিমাসে জমাকৃত এক লক্ষ চুয়াল্লিশ হাজার টাকা ছাড়াও আরও পাঁচ লাখ টাকা ঘুষ দাবি করেন বায়ার অফিসার মোঃ শফিকুর রহমান। তাহার কথায় রাজি হয়ে বিধবা শাহানাজ বেগম নিজের বাড়ির গরু বিক্রী করে এবং ঋন করে গত ১১ নভেম্বর নগদ তিন লাখ টাকা এবং পরবর্তীতে ৯ ডিসেম্বর আরও দুই লাখ টাকা দেন শফিকুর রহমানকে। কিন্তু চাকুরী জন্য পাওনা টাকাসহ ছয় লক্ষ চুয়াল্লিশ হাজার টাকা দিয়েও শেষ পর্যন্ত চাকুরী মিলেনি বিধবা শাহানাজের। সেখানে অন্য লোকের কাছ থেকে টাকা নিয়ে চাকুরী প্রদান করে বিধবা শাহানাজকে চাকুরী দিতে পারবেন বলে জানিয়ে দেয় বায়ার অফিসার শফিকুর রহমান।
চাকুরী না পেয়ে বিধবা শাহানাজ বেগম বায়ার অফিসার মোঃ শফিকুর রহমানের কাছে পাওনা টাকা ফেরন চাইলে তাকে বিভিন্নভাবে ঘুরাইতে থাকে। একপর্যায়ে গত ৭ ফেব্রুয়ারী সকালে পাওনা টাকা চাইতে শফিকুর রহমানের সরকারী বাসায় গেলে শাহানাজ বেগমকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি দেখিয়ে তারিয়ে দেয়। এঘটনায় বিধবা শাহানাজ বেগম চাকুরী দেয়ার কথা বলে প্রতারনামূলকভাবে টাকা হাতিয়ে নিয়ে এবং চাকুরী না দিয়ে টাকা আত্মসাতের বিষয়টি উল্লেখ করে বৃহস্পতিবার বিকেলে আশুলিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে সাভার কেন্দ্রীয় গো-প্রজনন ও দুগ্ধ খামারের বায়ার অফিসার মোঃ শফিকুর রহমান বলেন, শাহানাজ বেগম তিন হাজার টাকা বেতনে আমার বাসায় কাজ করতো। এর ফাঁকে বিভিন্ন সময় প্রয়োজন হলে সে আমার অফিসেও টুকিটাকি কাজ করে দিতো। কিন্তু টাকা নিতে তাকে চাকুরী দেয়ার প্রতিশ্রুতির বিষয়টি মিথ্যা এবং সাজানো নাটক বলে দাবি করেন তিনি।
আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ রিজাউল হক দিপু বলেন, ঘুষ নিয়ে চাকুরী দেয়ার নামে প্রতারনার অভিযোগে ভুক্তভোগী নারীর লিখিত অভিযোগটি আমরা হাতে পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে প্রতারনার প্রমান পাওয়া গেলে দোষী কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ