আজ ৩১শে আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৬ই অক্টোবর, ২০২১ ইং

ফটিকছড়িতে ঈদের দিনে নিজেই থানায় গিয়ে আত্মসমর্পণ করল অস্ত্র মামলার আসামি

 

ফটিকছড়ি প্রতিনিধি :

নিজেই থানায় গিয়ে পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করেছিলেন অস্ত্র মামলার আসামি মো: ইমতিয়াজ (৩০)।
মুসলমানদের বড় একটি ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আযহা। সারা বাংলাদেশের সব সেক্টরে ছুটি থাকলেও ছুটি নেই পুলিশ বিভাগের। যার ফলে সঙ্গত কারণেই সন্ধ্যার পর অফিসে বসা।
ফটিকছড়ি থানার এসআই সঞ্জয় কুমার ঘোষ ও এসআই খন্দকার মাঈনুল জানালো মোঃ ইমতিয়াজ, পিতা মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, সাং- ধুরং, থানা- ফটিকছড়ি, জেলা- চট্টগ্রাম এর বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন থেকে গ্রেফতারি পরোয়ানা থাকায়, সে স্বেচ্ছায় থানায় আত্মসমর্পণ করতে এসেছে।
কিছুটা অবাক হলাম আত্মসমর্পণ করতে পারে, কিন্তু ঈদের দিন কেন..? একদিন পরেও তো করতে পারতো।
ঈদের দিনে আত্মসমর্পণ নিয়ে ইমতিয়াজ এর সাথে কথা বলে জানা যায়, সে ফটিকছড়ি থানার মামলা নং- ৩ তাং-০৭/০৭/২০১৮ ইং ধারা- ১৮৭৮ সালের অস্ত্র আইনের ১৯-এ এর গ্রেফতারী পরোয়ানার আসামী। প্রায় ২ বৎসর যাবৎ সে পালিয়ে বেড়িয়ে পুলিশের হাতে গ্রেফতার না হলেও প্রতিনিয়ত মানসিক যন্ত্রণায় ভুগছিল। বিভিন্ন জায়গায় রাত্রি যাপন করলেও রাতে তার ঘুম হতো না। হঠাৎ ঘুম ভেঙ্গে যেত, মনে হতো এই বুঝি পুলিশ তার সন্ধান পেয়ে গেল। এমন মানসিক যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্যই তার পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করার সিদ্ধান্ত।
সে থানায় আত্মসমর্পণ করার পর রাতে থানায় অফিসার ও ফোর্সের জন্য আয়োজিত বিশেষ খাবার দিয়ে তাকে আপ্যায়িত করা হলে সে আরো অবাক হয়ে যায়। তার ধারণা ছিল, সে যেহেতু অস্ত্র আইনের মামলায় আসামী সেহেতু পুলিশ তার সঙ্গে খারাপ আচরণ করবে।
পরে ২জুলাই বিজ্ঞ আদালতে পাঠানোর পূর্বে ফটিকছড়িসহ সারা দেশে বিভিন্ন মামলায় পলাতক আসামীদের, পালিয়ে না থেকে বিজ্ঞ আদালতে অথবা থানায় আত্মসমর্পণ করে নিজের অপরাধ শিকার করে, স্বাভাবিক জীবন যাপন করার পরামর্শ প্রদান করে।
থানা রেকর্ড পর্যালোচনা করে তার বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে এবং দণ্ডবিধি আইনে অপর ২টি অপহরণ মামলাও বিজ্ঞ আদালতে বিচারাধীন মর্মে জানা যায়।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ