আজ ৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২০শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

দাম না থাকায় কোরবানীর খাসির চামড়া রাজশাহীর পদ্মা নদীতে নিক্ষেপ

 

জিয়াউল কবীর স্বপন
ব্যুরোপ্রধান,(রাজশাহী):

পরিবহণের টাকা অপেক্ষা কুরবানীর খাসির চামড়ার দাম কম হওয়ায় রাজশাহী সিল্ক সিটি সংলগ্ন টি বাঁধের পদ্মা নদীতে ফেলে দেয়া হলো চামড়া শিল্প উপকরন।
কোরবানীতে জবাই হওয়া হাজার হাজার খাসির চামড়া নিক্ষিপ্ত হয়েছে সিটি লাগোয়া পদ্মা নদীতে।
খাসি ছাগলের চামড়া প্রতি ২০ টাকা করে সংগ্রহ করে মৌসুমি ব্যবসায়ীরা আড়তদার দের কাছে বিক্রির জন্য নিয়ে গেলে তারা বলছে এ চামড়া ঢাকায় নিয়ে গেলে আমাদের
পরিবহণ
খরচও উঠবে না।
টাকা দিব কি করে?বরং বিনা টাকায় রেখে চলে যান।
প্যাট/কামলা মজুর দিয়ে মাটি খুড়ে না পুঁতে ফেলে আমাদের এখানে এমনিই রেখে চলে যাওয়া অনেক ভাল।
রাজশাহী সিটির গোলজার বাগ এলাকার পদ্মানদী সংলগ্ন এলাকাতে এসব ঘটায় মানুষ জন চাঁমড়া মাটিতে না পুঁতে পাশের নদীতে অইসব কোরবানীর চামড়া ফেলে দিচ্ছে।
আজ রবিবার দূপুরের দিকে এমন দৃশ্য স্থানীয় জনগন প্রত্যক্ষ করেছে বলে জানা গেছে।
খবর পেয়ে সাংবাদিকরা দ্রুত গিয়ে টামড়া পানিতে তলিয়ে যেতে দেখেছে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে
ছোট ছাগলের চামড়া পরিবহণ ব্যয় না করে এলাকার নদীতে ফেলে বা মাটিতে পুঁতে দিয়েছে। আড়তদার পর্যন্ত আসেই নাই।
বিনা দামেও অনেকে নেয়নি।
অন্যদিকে অইসব আড়তদারের দোকান সংলগ্ন পদ্মা পাঁড়ের নদীতে প্রায় ২০০০ টি খাসি ছাগলের চামড়া ফেলে দেয়া হয়েছে।
স্বাধীনতা যুদ্ধের পটভূমি লগ্নে জাতীর জনক শেখ মজিবর রহমান যে সব কথা বলে মানুষকে উদ্বুদ্ধ করেছিলেন তার মধ্যে এই চামড়া শিল্পও উল্লেখ যোগ্য ছিল আর এখন স্বাধীনতার অর্ধশত বছর পরও জনগন এ শিল্পের মুল্য পাচ্ছে না তা মেনে নিতে চরম হতাশা আর দু:খ লাগে। চামড়া শিল্প নিয়ে এসব আক্ষেপের কথা জানালেন রাজশাহীর ডজন খানেক দেশপ্রেমী
জনগন যাদের অনেকে তা প্রত্যক্ষ করেছে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ