আজ ৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৩শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

আশুলিয়া গ্র্যাজুয়েট অ্যাসোসিয়েশনের প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : উজ্জ্বল হোসাইন :  

সমাজ পরিবর্তনের প্রতিশ্রæতি নিয়ে প্রতিষ্ঠিত আশুলিয়া গ্র্যাজুয়েট অ্যাসোসিয়নের প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। রোববার রাতে আশুলিয়ার নরসিংহপুরের চায়না গার্ডেন রেস্টুরেন্টে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনুষ্ঠিত হয় বছরপুর্তির এই অনুষ্ঠান।
দৈনিক নয়া দিগন্তের সাংবাদিক ও অ্যাসোসিয়েশনের সিনিয়র সদস্য শাহেদ মতিউর রহমানের সভাপতিত্বে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর অনুষ্ঠানে অর্ধ শতাধিক সদস্য অংশ নেন।
এর আগে আশুলিয়ার বিভিন্ন এলকায় দিনব্যাপী বৃক্ষরোপন কর্মসূচী পালন, মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন এবং রাতে কেক কাটাসহ আকর্ষনীয় সব আয়োজনের মাধ্যমে পালিত হয় ব্যতিক্রমী এই সংগঠনের প্রথম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী। নানা রংঙ্গের বেলুন আর গৃহসজ্জার উপকরণে পুরো অনুষ্ঠানস্থল তৈরি করা হয় মনোমুগ্ধকর পরিবেশে। ঠিক এক বছর আগের এই দিনে ২০১৯ সারের ২৬ জুলাই আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করেছিল আশুলিয়া গ্র্যাজুয়েট অ্যাসোসিয়েশন।
সদস্যের সক্রিয় অংশ গ্রহণে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর অনুষ্ঠান পরিনত হয় এক মিলন মেলায়। যদিও করোনার কারণে সদস্যরা দীর্ঘদিন একত্রে মিলিত হতে পারছিলেন না। তবে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে গতকালের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে প্রত্যেক সদস্যই যেন ক্ষণিকের জন্য আত্মার শান্তি খুঁজে পান তারা। পারস্পরিক হাসি, আড্ডা আর গল্পে দীর্ঘ দিনের একাকীত্ব দূর হয়ে ভ্রাতৃত্বের বন্ধনে আর উচ্ছ¡াসে মেতে উঠেন সাভার আশুলিয়ার গ্র্যাজুয়েটরা। উল্লেখ্য ঢাকার জেলার আশুলিয়ার স্থায়ী বাসিন্দানের মধ্যে শুধুমাত্র গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন ব্যক্তিরাই এই সংগঠনের সদস্য। বর্তমানে সদস্য সংখ্যা নয় শ’ উপরে। ইতোমধ্যে সদস্য সংখ্যা বৃদ্ধিরও উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।
আশুলিয়া গ্র্যাজুয়েট অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোক্তা ও এডমিন আল মামুন এবং আমিরুল ইসলাম আসিফের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সিনিয়র সদস্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন এডভোকেট শফিক দেওয়ান, এডভোকেট জিল্লুর বহমান মাষ্টার, শহীদুল ইসলাম রেপারী, এস আই মানিক, মোস্তাফিজুর রহমান লিটন, ইকবাল আবীর, আবদুর রশিদ পলান, রবিন প্রামানিক, মোজাম্মেল মন্ডল, মাহফুজুর রহমান, জাকির হোসেন, রাসেল, ইমতিয়াজ আহমেদ, মাসুম রাব্বানী, আরিফুল ইসলাম, সিজার, তানবীর দেওয়ান, ফারুক হোসেন, রাকিব প্রমূখ।
অনুষ্ঠানে সর্বসম্মতভাবে সদস্য সংখ্যা বাড়ানো, নারীদের সম্পৃক্তকরন, এডমিন প্যানেল পুর্নগঠন, নিজস্ব ওয়েবপেজ চালু, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দিবস পালন, দুস্থদের মানবিক সহায়তা, শিক্ষা বৃত্তি চালুসহ সংগঠনকে গতিশীল করতে বিভিন্ন পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়। সবশেষে নৈশভোজ ও কেট কাটার মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ