আজ ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং

আখাউড়া রামধননগর গ্রামে নিরীহ বিমা কর্মকর্তার জায়গা দখলের পায়তারা

 

মো সুজন হাজারী
আখাউড়া প্রতিনিধি :

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আখাউড়া উপজেলার উঃ ইউপির রামধননগর গ্রামে আখাউড়ার একটি বিমা কোম্পানীর ব্যবস্থাপক কবির হোসেন ভূঁইয়ার ক্রয়কৃত ৩ শতক ভূমি গ্রাস করার পায়তারা করছে তারই প্রতিবেশী ও এ জায়গার সাবেক মালিক জামাল মিয়া ও তার পরিবার৷ উল্লেখ্য যে, বিমা ও ব্যবসায়ীক কারণে কবির ও জামাল মিয়ার মধ্যে আর্থিক লেনদেন থাকায় পাওনা টাকা না দিতে পেরে অবশেষে জামাল মিয়া নিজের বসতবাড়ির পাশের তিন শতক ভূমি দলিল করে বিক্রি করে দেন ২০১২ সালে৷ ইতিমধ্যে এ কয়েক বছরে জায়গার দাম বেড়ে যাওয়ায় কম মূল্যে বিক্রয় লব্ধ জায়গাটি বিক্রি করার প্রস্তাব দেয়, এতে কবির রাজি না হওয়াতে তার উপর অত্যাচারের মাত্রা বাড়িয়ে দেয় জামাল৷ কবিরের সোজা- সাপ্টা কথা, আমি এ জায়গাটা বিক্রি করবো, তবে ন্যায্য মূল্য পেয়ে ৷ এ ছাড়াও বিভিন্ন কাস্টমার আসলে কৌশলে বাহানা দেখিয়ে ফিরিয়ে দেয় কু- চক্রি জামাল মিয়া৷

এর মধ্যে গত কিছুদিন আগে কবির ভূঁইয়া অত্র এলাকার অস্থায়ী হওয়াতে প্রভাব দেখিয়ে জামাল মিয়া তার বাড়ি – ঘর ও গাছ-পালা ভেঙে, বিভিন্নভাবে হুমকি – ধামকি দিয়ে শারিরীক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করতে থাকে৷ এ বিষয়ে উক্ত গ্রামের সর্দার – মাতবরের মাধ্যমে কয়েক দফা শালিস হলে এর কোন যৌক্তিক সুরাহায় পৌছতে পারে নি কোন পক্ষ ৷ তাই বাধ্য হয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার চিন্তা করছে ভোক্তভূগি কবির ভূঁইয়া ৷

এ ব্যপারে জানতে চাইলে কবির ভূঁইয়া অত্র প্রতিবেদককে বলেন, ভাইরে আমরা এ এলাকার অস্থায়ী বাসিন্দা হওয়ায় আমাদের উপর বিভিন্নভাবে প্বার্শবর্তী জামাল ভূঁইয়ার লোকেরা কারণে- অকারণে আমার নিরীহ পরিবারের উপর শারিরীক ও মানসিকভাবে নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে, গত কিছুদিন আগে আমার সীমানার বরাবর বিরাট গর্ত করায় আমার সীমানায় থাকা একটি ফলছ গাছ নষ্ট হয়ে যায়, আমার সীমানার মাটিগুলোও সরে আমার ভিটি এখন হুমকির মুখে রয়েছে৷ আমি চাইতেছি এখান থেকে চলে যেতে, কিন্তু সে আমাকে কৌশলে কাস্টমার ফিরিয়ে দিয়ে আমাকে শূণ্য হাতে বিদেয় করতে চাচ্ছে ৷ এখন আমার মৃত্যু ছাড়া কোন পথ খোলা নেই৷ আমি সঠিক বিচারের জন্য প্রশাসন ও দেশের মানুষের নিকট ভার দিলাম৷
অপর দিকে জামাল মিয়ার সাথে একাধিক বার মোবাইলে যোগাযোগ করার চেস্টা করা হলে কল তিনি তা রিসিভ করেন নি৷

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ