আজ ৯ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৪শে জুলাই, ২০২১ ইং

টাঙ্গাইলে বিদ্যুতের ট্রান্সফরমার পড়ে মৃত্যুবরনকারীর পরিবারকে আর্থিক সহায়তা

 

মোকাব্বির আলম সানি, নিজস্ব প্রতিবেদক :

টাঙ্গাইলে বিদ্যুতের ট্রান্সফরমার পড়ে আকস্মিক দুর্ঘটনায় মৃত্যুবরনকারী আইসক্রিম বিক্রেতার পরিবারকে পৌর মেয়র এর মাধ্যমে আর্থিক সহায়তা প্রদান করলেন পল্লী বিদ্যুত সমিতির জিএম। টাঙ্গাইল পৌরসভার এনায়েতপুর এলাকার মোঃ সাইদ বেপারীর ছেলে নিহত লুৎফর রহমান (৩৮) এর স্ত্রীর হাতে ১০ জুলাই বিকালে নগদ তিন লক্ষ টাকা প্রদান করা হয়। টাঙ্গাইল পৌরসভার মেয়র জামিলুর রহমান মিরন ও এলাকাবাসীর দাবীর প্রেক্ষিতে, অসহায় ওই পরিবারটির সহায়তার জন্য টাঙ্গাইল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা যৌথভাবে এ টাকা প্রদান করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন টাঙ্গাইল পৌরসভার মেয়র জামিলুর রহমান মিরন, টাঙ্গাইল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার (জিএম) রাম শংকর রায়, ইনফোর্সমেন্ট কো-অর্ডিনেটর (ইসি) মোঃ রফিকুল ইসলাম, ২নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ মোকাদ্দেস আলী, স্থানীয় মাতব্বর মোঃ আনিসুর রহমান সরকার, ব্যবসায়ী মোঃ আজিজুল হাকিম, মোঃ আমিনুল ইসলাম, রানা হামিদ, আমিনুল সরকার, মিনহাজ আলী, নিহত লুৎফর রহমানের পিতা আবু সাঈদ বেপারী, নিহত লুৎফর রহমানের স্ত্রী ও দুই শিশু সন্তান। ঘটনার বিবরণে জানা যায়, টাঙ্গাইল সদর উপজেলার দাইন্যা ইউনিয়নের ধীতপুর গ্রামে পল্লী বিদ্যুতের ট্রান্সফরমার পড়ে ১২ জুন শুক্রবার দুপুরে এক দুর্ঘটনায় আইসক্রিম বিক্রেতা লুৎফর রহমান(৩৮) নিহত হয়েছিল। টাঙ্গাইল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির লাইনম্যান ও প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, ১২ জুন দুপুরের দিকে ওই গ্রামে একটি ট্রান্সফরমার পরিবর্তনের সময় লুৎফর রহমানকে কাজে সহযোগিতার জন্য ডেকে আনা হয়। হঠাৎ একটি ট্রান্সফরমার তার ওপর পড়লে গুরুতর আহত হন তিনি। স্থানীয়রা উদ্ধার করে তাকে টাঙ্গাইল সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। লুৎফর রহমানের চাচাতো ভাই শহিদুল ইসলাম বলেন, লুৎফরের পরিবারে তিনি একাই রোজগার করতেন। তার ছয় বছরের এক মেয়ে ও ১০ বছরের এক

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ