আজ ৩১শে আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৬ই অক্টোবর, ২০২১ ইং

সরাইলের জয়ধরকান্দী গ্রামের ১৫০০ ফুট রাস্তার ইটের সোলিং করে দিলেন গাউছ মিয়া

 

হাসনাত কাইয়ূম,সরাইল প্রতিনিধি :

 

সরাইলের জয়ধরকান্দী গ্রামের ৬ ফুট প্রশস্থ ও ১৫০০ ফুট লম্বা রাস্তায় ৬ লক্ষ্য টাকা ব্যায়ে ইটের সোলিং করে দিলেন চীন প্রবাসী গাউছ মিয়া।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইল উপজেলার পাকশিমূল ইউনিয়নের জয়ধরকান্দী গ্রামের ৬ ফিট প্রশস্থ ও ১৫০০ ফুট লম্বা রাস্তায় চীন প্রবাসী গাউছ মিয়ার নিজস্ব অর্থায়নে প্রায় ৬ লক্ষ্য টাকা ব্যায়ে ইটের সোলিং কাজ শেষ পর্যায়ে। প্রায় ৪০ হাজার ইট দিয়ে ১০ জন শ্রমিক, ৩ জন রাজমিস্ত্রী বালি সিমেন্ট নিয়ে ১০ দিন যাবত কাজ করছে। ২/৩ দিনের মধ্যে বাকি কাজ শেষ হবে বলে জানান শ্রমিক বৃন্দ।

জয়ধরকান্দী গ্রামের পূর্ব পাড়া, মাধুর পাড়া,মাদারী পাড়া ও পাঠান পাড়া এই ৪ পাড়ার প্রায় ৩৫০০ জন সাধারণ তথা স্কুল মাদ্রাসা পড়ুয়া ছাত্র ছাত্রীরা পানি আর কাদা ভেঙে মাদারী পাড়ার খেয়া ঘাট হতে আলীম উদ্দিন উচ্ছ বিদ্যালয় পর্যন্ত ৭০০ ফুট ও মাদারীপাড়ার ইদ্রিস আলীর বাড়ী হতে পূর্ব পাড়া জামে মসজিদ হয়ে হাবিবুল্লাহর বাড়ী পর্যন্ত ৮০০ ফুট রাস্তা দিয়ে স্কুল মসজিদে জাতায়াত করে। এই এলাকার জনসাধারণের দুর্ভোগ লাগবে দুইটি রাস্তার ১৫০০ ফুট রাস্তা ইটের সোলিং করে দেন সমাজ সেবক দানবীর গাউছ।

মোঃ গাউছ মিয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইল উপজেলার পাকশিমূল ইউনিয়নের জয়ধরকান্দী গ্রামের মৃত হাজী মোঃ আব্দুল আলীর ছেলে।

সমাজ সেবক গাউছ বলেন আল্লাহর সন্তুষ্টি আর মানুষের উপকারের জন্যই আমার এ প্রয়াস। ভবিষ্যতে ও আমার এ প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

মাদারী পাড়ার জাহের ইসলাম বলেন গাউছ নিজ টাকায় রাস্তায় ইটের সোলিং করেছেন।এ পাড়াকে যেন গাউছ শহর বানাইছে।আল্লাহর রহমত গাউছের উপর।আমরা খুব খুশি।

গ্রামের স্কুল শিক্ষক মোঃ আয়ূব খান বলেন, রাস্তাঘাট সংস্কারে বিত্তবানরা এভাবে এগিয়ে এলে বাংলাদেশ আরও উন্নত হতো। আমি দানবীর গাউছের এ মহান উদ্যোগকে স্বাগত জানাই।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ