আজ ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১লা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং

চাঁদপুর মেঘনার ঘূর্ণি স্রোতে খাদ্যপণ্য ও আরোহী নিয়ে ট্রলার ডুবি

 

ইব্রাহীম খলীল সবুজ – চাঁদপুর জেলা প্রতিনিধিঃ

 

চাঁদপুর মেঘনায় ঘূর্ণিঝড়ের কবলে পড়ে প্রায় ২৪ লক্ষ টাকার খাদ্য পণ্য নিয়ে একটি ট্রলার ডুবে গেছে। এই ঘটনায় অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গেছেন টলার চালকসহ ১৫ আরোহী যাত্রী। ২৮ই জুন রবিবার দুপুর আড়াইটার সময় পুরাণবাজার ঠোট্টা এলাকায় এই নৌ-দুর্ঘটনাটি ঘটে।

নৌ পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, পুরাণবাজার দেওয়ান ঘাট থেকে জনৈক অলি মাঝির ট্রলার শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া আত্রা বাজার ব্যবসায়ীদের বিভিন্ন নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী নিয়ে মেঘনা পাড়ি দিচ্ছিল। এসময় পুরাণবাজার ঠোট্টা অতিক্রমকালে হঠাৎ তীব্র ঢেউ ও ঘূর্ণিস্রোতের তোড়ে পড়ে ট্রলারটি তলিয়ে যায়।

এসময় ট্রলারে থাকা মাঝিমাল্লা ও ব্যবসায়ীরা নদীতে পড়ে যায় এবং স্রোতের সাথে ভাসতে ভাসতে হরিসভার পশ্চিম শ্রীরামদী এলাকার দিকে চলে যায়। টলার ডুবির খবর পেয়ে আশপাশের ঘাট থেকে খালি ট্রলার নিয়ে লোকজন ছুটে গিয়ে তাদেরকে উদ্ধার করে। এসময় ভাসমান কিছু খাদ্যপণ্য ও তেলের ড্রাম উদ্ধার করা হয়।

নিমজ্জিত ট্রলার চালক অলি মাঝি (৪৮) জানান, চরআত্রা বাজার ব্যবসায়ীদের খরিদ করা বিভিন্ন খাদ্যপণ্য নিয়ে যাবার সময় তার ট্রলারটি স্রোত ও দেওর কবলে পড়ে ডুবে গেছে। টলারে রাইস থেকে ক্রয় করা ২৪ লক্ষ টাকার খাদ্যপণ্য ছিল। যা সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। চরআত্রা বাজারের আফজাল, জানশরীফ, দিদার এ তিনজনের খাদ্যপণ্য বেশি ছিল।

এদিকে স্থানীয়রা জানান, এবার বর্ষা মৌসুমে এটাই ঘূর্ণি স্রোতের স্থলে প্রথম নৌ দুর্ঘটনা। প্রতি বছর বর্ষা এলে চাঁদপুর মোলহেড এলাকার পদ্মা-মেঘনা-ডাকাতিয়া এ তিন নদীর মিলন স্থানটি ভয়ঙ্কর ও বিপদজনক এলাকা হিসেবে পরিণত হয়। যা নৌ চলাচলের জন্য খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। এবারও সেই স্থান দিয়ে প্রবল বেগে ঘূর্ণনস্রোত প্রবাহিত হচ্ছে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ